সব

কোন ব্রাউজার কার জন্য?

রাকিবুল হাসান
প্রিন্ট সংস্করণ

.ইন্টারনেটে কেউ গান শোনেন, কেউ ফেসবুক ব্যবহার করেন, অনেকে সারেন দরকারি কাজ। কেউবা আবার গেম খেলতে ঢুঁ মারেন বিভিন্ন ওয়েবসাইটে। প্রধান ব্রাউজারগুলোর সুবিধার তালিকা প্রায় একই। তবু ব্রাউজারগুলো আলাদা। একেকজনের কাজের ধরন বুঝেই ব্রাউজার নির্বাচন করা উচিত। আর সব কাজ এক ব্রাউজার দিয়ে করতে চাইলে জেনে নিতে হবে কোন ব্রাউজার আপনার জন্য উপযুক্ত।
মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের জন্য ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার বা মাইক্রোসফটের নতুন ব্রাউজার ‘এজ’ দেওয়াই থাকে। আর অ্যাপলের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য থাকে সাফারি। এ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ আরও দুটি ব্রাউজার ওপেন সোর্স কোড-ভিত্তিক গুগল ক্রোম ও মজিলা ফায়ারফক্স। এর বাইরে অন্য বেশ কিছু ব্রাউজার গুগল ক্রোমের সোর্স কোড ব্যবহার করে তৈরি। এসবের পরেই আছে অপেরা ও ভিভালদি ব্রাউজারের নাম। গুরুত্বপূর্ণ সব ব্রাউজারই ভিন্ন ভিন্ন রেন্ডারিং ইঞ্জিন ব্যবহার করে থাকে। গুগল ব্যবহার করে ব্লিংক ইঞ্জিন। গেকো ইঞ্জিন ব্যবহার করে ফায়ারফক্স। ট্রাইডেন্ট ইঞ্জিন ব্যবহার করে মাইক্রোসফট আর সাফারি ব্যবহার করে ওয়েবকিট ইঞ্জিন।

গুগল ক্রোম
নিরাপত্তার বিবেচনায় গুগল ক্রোম এগিয়ে থাকবে। বর্তমানে এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্রাউজার। ক্রোমে অন্য ব্রাউজারগুলোর তুলনায় ভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করায় একটা ট্যাবে কোনো ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সময় কোনো কারণে ক্র্যাশ করলে সেটি পুরো ব্রাউজারে প্রভাব ফেলে না। তবে অন্যগুলোর তুলনায় ক্রোম কম্পিউটারের বেশি মেমোরি নিয়ে থাকে। একই সঙ্গে একাধিক ট্যাব চালু রাখলে ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনে ব্যাটারি বেশি খরচ হয়। এই সমস্যা সমাধানে অবশ্য কাজ চলছে।

মজিলা ফায়ারফক্স
ফায়ারফক্স ক্রোমের মতোই দ্রুততার সঙ্গে ওয়েবসাইট দেখাতে পারে। এটি ক্রোমের তুলনায় মেমোরি কম খরচ করে কিন্তু কোনো ট্যাবের সাইট যদি ক্র্যাশ করে, তবে পুরো ব্রাউজারকে ক্র্যাশ করে ফেলে। কখনো কখনো একাধিক ট্যাব চালু রাখলে ফায়ারফক্স ধীরগতির হয়ে যায়। ফলে এটিকে রিস্টার্ট করার প্রয়োজন পড়ে।

মাইক্রোসফট এজ
এজ দ্রুত এবং এতে নিরাপত্তাও বেশ ভালো। বলা হয় এটি ক্রোমের মতোই ব্যাটারি বেশি খরচ করে। কিন্তু এটি এখনো ডেভেলপমেন্ট অবস্থায় আছে। উইন্ডোজ দশের করটানা সুবিধা এতে যুক্ত থাকায় এটি ব্যবহার সুবিধাজনক। ফায়ারফক্সের স্ট্যান্ডার্ড বজায় রাখলেও এটি অন্তত ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের চেয়ে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে আছে। তবে এতে ব্রাউজার এক্সটেনশন কম থাকায় অনেকটা পিছিয়েও আছে।

অন্যান্য
গোপনীয়তা ও অন্যান্য কারণে ক্রোম-ভিত্তিক ভিভালদি ব্যবহার করা যায়। নিজের পছন্দমতো এটি সাজিয়ে নেওয়া যায়। অপেরা ব্রাউজারের আগের ডেভেলপাররা ভিভালদি তৈরি করেছে। ভিভালদি ও অপেরা ব্রাউজারে ক্রোমের অনেক এক্সটেনশনই সমর্থন করে। জনপ্রিয় এই ব্রাউজারের বাইরে আরও কিছু ব্রাউজার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন ইয়ানডেক্সের ডেভেলপারদের বানানো ইয়ানডেক্স ব্রাউজার অনেকটা গুগল ক্রোমের মতোই। ক্রোমিয়াম-ভিত্তিক এই ব্রাউজারে চাইলেই আপনি পছন্দমতো আপনার দরকারি সব কাজই করতে পারবেন। উইন্ডোজ, ম্যাক ও স্মার্টফোনে ব্যবহার করা যায় এটি। এ ছাড়া কোমোডো আইসড্রাগন ব্রাউজারের নিরাপত্তাব্যবস্থাও বেশ ভালো। অনিরাপদ ওয়েবসাইট বা নিরাপদ লগইনের জন্য এটি বেশ ভালো। ফায়ারফক্সের প্লাগইনস এখানে ব্যবহার করতে পারবেন। আবার ম্যাক্সথন ব্রাউজার একসঙ্গে একাধিক সাইটকে পাশাপাশি দেখিয়ে ব্রাউজিংয়ের সুবিধা দেয়। এর ইউএক্স অনেক নজরকাড়া।

যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার
নিরাপত্তা, গোপনীয়তা, গতি—সব মিলিয়ে নির্ধারণ করতে হবে, কোন ব্রাউজার আপনার জন্য। ওয়েব ব্রাউজার হতে হবে দ্রুততর এবং সব অপারেটিং সিস্টেম সমর্থিত। এমন হতে হবে, যাতে নিরাপত্তাবলয় থাকবে জোরদার। হতে পারে আপনার অজান্তেই এমন এক লিংকে ক্লিক করেছেন, যার ফলে কম্পিউটারে ভাইরাস এসে গেল। তাই নিরাপত্তাব্যবস্থাকে প্রাধান্য দিতে হবে আগে।

কোন ব্রাউজার কার জন্য?

রাকিবুল হাসান

ইন্টারনেটে কেউ গান শোনেন, কেউ ফেসবুক ব্যবহার করেন, অনেকে সারেন দরকারি কাজ। কেউবা আবার গেম খেলতে ঢুঁ মারেন বিভিন্ন ওয়েবসাইটে। প্রধান ব্রাউজারগুলোর সুবিধার তালিকা প্রায় একই। তবু ব্রাউজারগুলো আলাদা। একেকজনের কাজের ধরন বুঝেই ব্রাউজার নির্বাচন করা উচিত। আর সব কাজ এক ব্রাউজার দিয়ে করতে চাইলে জেনে নিতে হবে কোন ব্রাউজার আপনার জন্য উপযুক্ত।

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের জন্য ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার বা মাইক্রোসফটের নতুন ব্রাউজার ‘এজ’ দেওয়াই থাকে। আর অ্যাপলের অপারেটিং সিস্টেমের জন্য থাকে সাফারি। এ ছাড়া গুরুত্বপূর্ণ আরও দুটি ব্রাউজার ওপেন সোর্স কোড-ভিত্তিক গুগল ক্রোম ও মজিলা ফায়ারফক্স। এর বাইরে অন্য বেশ কিছু ব্রাউজার গুগল ক্রোমের সোর্স কোড ব্যবহার করে তৈরি। এসবের পরেই আছে অপেরা ও ভিভালদি ব্রাউজারের নাম। গুরুত্বপূর্ণ সব ব্রাউজারই ভিন্ন ভিন্ন রেন্ডারিং ইঞ্জিন ব্যবহার করে থাকে। গুগল ব্যবহার করে ব্লিংক ইঞ্জিন। গেকো ইঞ্জিন ব্যবহার করে ফায়ারফক্স। ট্রাইডেন্ট ইঞ্জিন ব্যবহার করে মাইক্রোসফট আর সাফারি ব্যবহার করে ওয়েবকিট ইঞ্জিন।

 

গুগল ক্রোম

নিরাপত্তার বিবেচনায় গুগল ক্রোম এগিয়ে থাকবে। বর্তমানে এটি সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্রাউজার। ক্রোমে অন্য ব্রাউজারগুলোর তুলনায় ভিন্ন প্রযুক্তি ব্যবহার করায় একটা ট্যাবে কোনো ওয়েবসাইট ব্রাউজ করার সময় কোনো কারণে ক্র্যাশ করলে সেটি পুরো ব্রাউজারে প্রভাব ফেলে না। তবে অন্যগুলোর তুলনায় ক্রোম কম্পিউটারের বেশি মেমোরি নিয়ে থাকে। একই সঙ্গে একাধিক ট্যাব চালু রাখলে ল্যাপটপ বা স্মার্টফোনে ব্যাটারি বেশি খরচ হয়। এই সমস্যা সমাধানে অবশ্য কাজ চলছে।

 

মজিলা ফায়ারফক্স

ফায়ারফক্স ক্রোমের মতোই দ্রুততার সঙ্গে ওয়েবসাইট দেখাতে পারে। এটি ক্রোমের তুলনায় মেমোরি কম খরচ করে কিন্তু কোনো ট্যাবের সাইট যদি ক্র্যাশ করে, তবে পুরো ব্রাউজারকে ক্র্যাশ করে ফেলে। কখনো কখনো একাধিক ট্যাব চালু রাখলে ফায়ারফক্স ধীরগতির হয়ে যায়। ফলে এটিকে রিস্টার্ট করার প্রয়োজন পড়ে।

 

মাইক্রোসফট এজ

এজ দ্রুত এবং এতে নিরাপত্তাও বেশ ভালো। বলা হয় এটি ক্রোমের মতোই ব্যাটারি বেশি খরচ করে। কিন্তু এটি এখনো ডেভেলপমেন্ট অবস্থায় আছে। উইন্ডোজ দশের করটানা সুবিধা এতে যুক্ত থাকায় এটি ব্যবহার সুবিধাজনক। ফায়ারফক্সের স্ট্যান্ডার্ড বজায় রাখলেও এটি অন্তত ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের চেয়ে প্রতিযোগিতায় এগিয়ে আছে। তবে এতে ব্রাউজার এক্সটেনশন কম থাকায় অনেকটা পিছিয়েও আছে।

 

অন্যান্য

গোপনীয়তা ও অন্যান্য কারণে ক্রোম-ভিত্তিক ভিভালদি ব্যবহার করা যায়। নিজের পছন্দমতো এটি সাজিয়ে নেওয়া যায়। অপেরা ব্রাউজারের আগের ডেভেলপাররা ভিভালদি তৈরি করেছে। ভিভালদি ও অপেরা ব্রাউজারে ক্রোমের অনেক এক্সটেনশনই সমর্থন করে। জনপ্রিয় এই ব্রাউজারের বাইরে আরও কিছু ব্রাউজার ব্যবহার করে দেখতে পারেন। রাশিয়ান সার্চ ইঞ্জিন ইয়ানডেক্সের ডেভেলপারদের বানানো ইয়ানডেক্স ব্রাউজার অনেকটা গুগল ক্রোমের মতোই। ক্রোমিয়াম-ভিত্তিক এই ব্রাউজারে চাইলেই আপনি পছন্দমতো আপনার দরকারি সব কাজই করতে পারবেন। উইন্ডোজ, ম্যাক ও স্মার্টফোনে ব্যবহার করা যায় এটি। এ ছাড়া কোমোডো আইসড্রাগন ব্রাউজারের নিরাপত্তাব্যবস্থাও বেশ ভালো। অনিরাপদ ওয়েবসাইট বা নিরাপদ লগইনের জন্য এটি বেশ ভালো। ফায়ারফক্সের প্লাগইনস এখানে ব্যবহার করতে পারবেন। আবার ম্যাক্সথন ব্রাউজার একসঙ্গে একাধিক সাইটকে পাশাপাশি দেখিয়ে ব্রাউজিংয়ের সুবিধা দেয়। এর ইউএক্স অনেক নজরকাড়া।

 

যে বিষয়গুলো খেয়াল রাখা দরকার

নিরাপত্তা, গোপনীয়তা, গতি—সব মিলিয়ে নির্ধারণ করতে হবে, কোন ব্রাউজার আপনার জন্য। ওয়েব ব্রাউজার হতে হবে দ্রুততর এবং সব অপারেটিং সিস্টেম সমর্থিত। এমন হতে হবে, যাতে নিরাপত্তাবলয় থাকবে জোরদার। হতে পারে আপনার অজান্তেই এমন এক লিংকে ক্লিক করেছেন, যার ফলে কম্পিউটারে ভাইরাস এসে গেল। তাই নিরাপত্তাব্যবস্থাকে প্রাধান্য দিতে হবে আগে।

default image

টাস্কবারের এক্সপ্লোরার আইকনে যেকোনো ফোল্ডার

মোবাইল ফোনের গতি কমে গেলে

মোবাইল ফোনের গতি কমে গেলে

ছবি যখন পাসওয়ার্ড

ছবি যখন পাসওয়ার্ড

যে ফাইল বা ফোল্ডার ডিলিট হয় না

যে ফাইল বা ফোল্ডার ডিলিট হয় না

মন্তব্য ( ১ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

সন্তানদের জন্য বিল গেটসের বিধিনিষেধ!

সন্তানদের জন্য বিল গেটসের বিধিনিষেধ!

কিশোর বয়সেই কম্পিউটার প্রোগ্রামিং শুরু করেন বিল গেটস। স্কুলে পড়ার সময়...
মেহেদী হাসান
অনলাইন বিপণনে সিপিএ

আউটসোর্সিং অনলাইন বিপণনে সিপিএ

তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক আউটসোর্সিংয়ে নানা রকম কাজের সুযোগ রয়েছে। এর একটা হচ্ছে...
মো. সুমন রানা
ফ্রি ওয়াই-ফাই পেলে কী করবেন?

ফ্রি ওয়াই-ফাই পেলে কী করবেন?

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, হোটেল, রেস্তোরাঁসহ জনসমাগম হয় এমন জায়গায় (পাবলিক প্লেস)...
অনলাইন ডেস্ক
default image

হেল্পলাইন দুই ক্লিকে ড্রাইভ না খুললে

অনেক সময় কম্পিউটারে কাজ করতে গিয়ে দেখলেন হার্ডডিস্কের আলাদা ড্রাইভগুলোতে ডাবল...
১১ মে পবিত্র শবে বরাত

১১ মে পবিত্র শবে বরাত

আগামী ১১ মে (বৃহস্পতিবার) দিবাগত রাতে সারা দেশে পবিত্র লাইলাতুল বরাত পালিত...
একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরু ৯ মে

একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন শুরু ৯ মে

আগামী ৯ মে অনলাইনে শুরু হচ্ছে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির...
তিস্তার জল দিতে পারব না বাংলাদেশকে

তিস্তার জল দিতে পারব না বাংলাদেশকে

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তিস্তার পানি বণ্টনের ক্ষেত্রে...
এক নারীকে স্ত্রী দাবি দুই ব্যক্তির!

এক নারীকে স্ত্রী দাবি দুই ব্যক্তির!

পটুয়াখালীর বাউফলে এক নারীকে (২২) দুই ব্যক্তি স্ত্রী হিসেবে দাবি করছেন। এ নিয়ে...
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info