সব

ভারতের ‘বাড়া ভাতে ছাই’ হ্যান্ডসকম্বের

অনলাইন ডেস্ক

হ্যান্ডসকম্বের কাছে এভাবেই হেরে গেছে ভারতের সব প্রচেষ্টা। ছবি: এএফপি‘স্মিথ-ওয়ার্নার গেল তল, মার্শ-হ্যান্ডসকম্ব বলে কত জল!’
ভারত নির্ঘাত এমনটা ভেবেই দ্বিতীয় সেশনে খেলতে নেমেছিল। ১৫২ রানের লিড নিয়ে ইনিংস ঘোষণা করেছিল স্বাগতিক দল। শেষ দিনের উইকেটের সুবিধা নিয়ে ৬৩ রানের মধ্যেই ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন জাদেজা-ইশান্ত। জয় তো দুয়ারেই, দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান শন মার্শ আর পিটার হ্যান্ডসকম্ব কতক্ষণই বা টিকবেন! সেই ‘কতক্ষণ’কে শেষ পর্যন্ত গোটা দিনই বানিয়েছেন হ্যান্ডসকম্ব। তাঁর ২০০ বলে ৭২ রানের ইনিংসেই রাঁচি টেস্ট ড্র করেছে অস্ট্রেলিয়া।
২ উইকেট হারিয়ে দিন শুরু করেছিল অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ঘণ্টাটা সেভাবেই কাটিয়ে দিয়েছিল তারা। ঝামেলাটা হলো দ্বিতীয় ঘণ্টায়। প্রথমে আউট হলেন ম্যাথু রেনশ, আর একটু পরেই ক্রিকেটের নতুন শব্দ ‘ব্রেন ফেড’-এর আরও একটি উদাহরণ তৈরি করে আউট স্টিভ স্মিথ। বাঁহাতি স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজার বলটা লেগ স্টাম্পে পড়েছিল। কিন্তু সেটা দেখেও ব্যাট তুলে পা দিয়ে বল আটকানোর চেষ্টা করেছেন স্মিথ। পাটাও খুব বেশি বাড়াননি, ফলে লাইন মিস করে বোল্ড! জয়ের নেশায় তখন কাঁপছে পুরো গ্যালারি। অস্ট্রেলিয়ার সেরা ব্যাটসম্যানই (৬৩/৪) ফিরে গেছেন, ভারতের জয় আর ঠেকায় কে!
কিন্তু হিসাবে একটু ভুল হয়েছিল ভারতের। উইকেটে যে রয়ে গিয়েছিলেন মার্শ-হ্যান্ডসকম্ব । দুজনে মিলে যে জুটি গড়েছেন, সেটি ইতিহাসেরই অংশ হয়ে থাকবে। উইকেটের একপাশে ধুলো উড়িয়ে টানা বল করে যাচ্ছেন জাদেজা, অন্যদিকে রবিচন্দ্রন অশ্বিনই ভয় ধরাচ্ছিলেন প্রায় প্রতি ওভারে। যখনই সুযোগ মিলেছে, উমেশ যাদব কিংবা ইশান্ত শর্মাও আগুন ঝরিয়েছেন, রিভার্স সুইং দিয়ে ফণা তুলেছেন। কিন্তু ধৈর্যের পরীক্ষায় পূর্ণ নম্বর পেয়েই পাস করেছেন হ্যান্ডসকম্ব ও মার্শ। প্রথমে মার্শই কাঁধ পেতে চাপ সয়েছেন, পরে সে দায়িত্বটা নিয়েছেন হ্যান্ডসকম্ব। প্রথমে শুধু টিকে থাকায় মন দিয়েছেন, পড়ে থিতু হয়ে পাল্টা আক্রমণও করেছেন। ৬২.১ ওভারের জুটিটা যখন থামল জাদেজার বলে, ততক্ষণে ম্যাচ প্রায় বাঁচিয়েই ফেলেছে অস্ট্রেলিয়া। দিনের আর মাত্র ৪০ মিনিটের খেলা বাকি থাকতে ১৯৭ বলে ৫৩ রান করে আউট হয়েছেন মার্শ।
ম্যাচ জেতার আশা তখনো ছাড়েনি ভারত। কিন্তু মাত্র ৭ টেস্টের অভিজ্ঞতাকেই পুঁজি করা হ্যান্ডসকম্ব লড়াইটা চালিয়ে গেলেন। গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে ২ রানে ফেরানোর পরও তাই ১৫ মিনিট আগেই ড্র মেনে নিয়েছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার স্কোর তখন ৬ উইকেটে ২০৪ রান। আর ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংস খেলে অপরাজিত হ্যান্ডসকম্ব। অসাধারণ এই ইনিংসে ছিল ৭টি চার।
ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন চেতেশ্বর পূজারা, কিন্তু এ ম্যাচটা মনে রাখতে হবে হ্যান্ডসকম্বের কারণেই। সূত্র: স্টার স্পোর্টস

 

দলের সঙ্গে যাচ্ছেন না সাকিব–মোস্তাফিজ

দলের সঙ্গে যাচ্ছেন না সাকিব–মোস্তাফিজ

ইউনিসের ব্যাটে ১০ হাজার

ইউনিসের ব্যাটে ১০ হাজার

ওয়ানডেতেও ফিরলেন মালিঙ্গা

ওয়ানডেতেও ফিরলেন মালিঙ্গা

দেড় বছর পর ওয়ানডে দলে মালিঙ্গা

দেড় বছর পর ওয়ানডে দলে মালিঙ্গা

মন্তব্য ( ৫ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

হয়ে গেল ইউনিসের ১০ হাজার

হয়ে গেল ইউনিসের ১০ হাজার

চা বিরতির পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের রোস্টন চেজকে সুইপ করেই মাইলফলকটা ছুঁয়ে ফেললেন...
default image

তাহলে কী ক্রিকেট শিখল চীন!

সৌদি আরব ক্রিকেট খেলে! এ ‘বিস্ময়কর’ তথ্যটা জানানোর জন্য চীনকে...
আমিরের আসল ফেরা

কিংস্টন টেস্ট আমিরের আসল ফেরা

মোহাম্মদ আমির ফিরেছেন ক্রিকেটে, সেটাও বহুদিন হয়ে গেছে। কিন্তু আসলেই কি...
কেমন হওয়া উচিত ভারতের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দল?

কেমন হওয়া উচিত ভারতের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দল?

সেই কবে এসেছেন ভারতে। এখনো আছেন, থাকবেন আরও কিছুদিন। মাইকেল ক্লার্ক ভারতে কাজ...
কিছু ‘জ্ঞানপাপী’ যেকোনো বিষয়ে মিথ্যা প্রচারণায় মেতে ওঠেন

হাওরের পরিস্থিতি নিয়ে প্রধানমন্ত্রী কিছু ‘জ্ঞানপাপী’ যেকোনো বিষয়ে মিথ্যা প্রচারণায় মেতে ওঠেন

১৪২টি হাওরের সব ফসল তলিয়ে গেল

সর্বশেষ পাকনার হাওরও পানির নিচে ১৪২টি হাওরের সব ফসল তলিয়ে গেল

৩৫ বছর পর এবার এপ্রিলে সর্বোচ্চ বৃষ্টি

৩৫ বছর পর এবার এপ্রিলে সর্বোচ্চ বৃষ্টি

পুলিশি বাধায় শ্রদ্ধা জানানো হলো না স্বজনদের

রানা প্লাজা ধসের ৪ বছর পুলিশি বাধায় শ্রদ্ধা জানানো হলো না স্বজনদের

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info