সব

ফেদেরারের ‘১৮’

অনলাইন ডেস্ক

চ্যাম্পিয়ন! ছবি: এএফপিএভাবে শেষ হলো স্বপ্নের ম্যাচের!
পঞ্চম সেটের খেলা চলছে। ফেদেরার-নাদাল আগের চার সেটে ২-২ সমতা! শেষ সেটেও অনেক নাটকীয়তা শেষে ফেদেরার এগিয়ে আছেন। ম্যাচের জন্য সার্ভ করছেন, এমন সময় টানা তিনবার তাঁর সার্ভে হলো ফল্টের ডাক। তিনবারই ফেদেরার চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। প্রথম দুবার দেখা গেল, কল ঠিকই আছে। বল পড়েছে দাগের বাইরে। কিন্তু শেষবার? হক-আইতে দেখা গেল, ফেদেরারের সার্ভ নির্ধারিত সীমার মধ্যেই পড়েছে।
হক-আইতে রিপ্লের ওই কয়েক সেকেন্ডই তখন যেন মনে হচ্ছিল অনন্তকাল! ফেদেরারের অপেক্ষা, অপেক্ষা শতকোটি টেনিসপ্রেমীর! অপেক্ষা সুইস কিংবদন্তির ১৮তম গ্র্যান্ড স্লামের।
রিপ্লেতে সিদ্ধান্তটা আসতেই এক সেকেন্ডের অপেক্ষা। তারপরই ফেদেরারের চোখে মুখে খেলে গেল আনন্দের ঝিলিক! অনেক অপেক্ষার পর অমূল্য কোনো প্রাপ্তির আনন্দ! ২০১২ উইম্বলডনের পর যে অপেক্ষা চলছিল—আরেকটি গ্র্যান্ড স্লাম!
আজ নিজের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী রাফায়েল নাদালকে হারিয়েই সেটি জিতে গেলেন নাদাল। পাঁচ সেটের দুর্দান্ত লড়াইয়ে স্প্যানিশ তারকাকে ৬-৪, ৩-৬, ৬-১, ৩-৬, ৬-৩ গেমে হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শিরোপা জিতলেন ফেদেরার। ১৫ মাস পর টেনিসে তাঁর প্রথম ট্রফি, যা কিনা ওপেন যুগে কোনো গ্র্যান্ড স্লাম চ্যাম্পিয়নের সবচেয়ে বড় শিরোপা-খরা! সত্যিকারের চ্যাম্পিয়নের মতোই খরাটা ঘোচালেন ফেদেরার।
ম্যাচটা ছিলই দুই চ্যাম্পিয়নের। টেনিসপ্রেমীদের কাছে স্বপ্নের ফাইনাল—রজার ফেদেরার বনাম রাফায়েল নাদাল! দুই প্রতিদ্বন্দ্বী, দুই বন্ধু! টুর্নামেন্ট শুরুর আগে যে ফাইনালের কথা স্বপ্নেও ভেবেছিলেন খুব কম মানুষ। কয়েক বছর ধরেই যে দুজন চোটের সঙ্গে লড়াইয়ে একটু একটু করে সরে যাচ্ছিলেন আড়ালে! এবার ফিরলেন। টেনিস-প্রেমীদের নস্টালজিক করে দিয়ে। টেনিসের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড় বনাম তাঁর নেমেসিস কোনো গ্র্যান্ড স্লামের ফাইনালে মুখোমুখি—এর চেয়ে ভালো আর কিছু হতে পারত না!
আজ ম্যাচটা অবশ্য সে অর্থে দুজনের অন্য অনেক ম্যাচের মতো ক্ল্যাসিক হয়নি। কোনো সেট গড়ায়নি টাইব্রেকারে, বলতে গেলে সহজেই জিতেছেন নিজেদের সার্ভিস। তবে যা হলো, তাতেই মুগ্ধতা। ফেদেরারের এইস, ফোরহ্যান্ড রিটার্ন, বা নাদালের ক্রস কোর্ট রিটার্ন...এ যে বর্তমানে অতীতের ছোঁয়া দিয়ে যাওয়া!
সেমিফাইনালে গ্রিগর দিমিত্রভের সঙ্গে ৪ ঘণ্টা ৫৬ মিনিটের মহাকাব্যিক লড়াই শেষে বিরতি পেয়েছিলেন মাত্র এক দিনের। প্রথম সেটে সেটিরই প্রভাব হয়তো টের পাচ্ছিলেন নাদাল। তাঁর চতুর্থ সার্ভিসই ব্রেক করেন ফেদেরার। সেটও জিতে নেন ৪-৬ গেমে। এর মানসিক একটা প্রভাব ফেদেরারের ওপর না পড়ে পারেই না। এর আগে গ্র্যান্ড স্লামে ১১ সাক্ষাতে মাত্র দুবার নাদালকে হারিয়েছিলেন সুইস কিংবদন্তি, দুবারই আগে নিজের প্রথম সেট জিতে শুভ সূচনা করেছিলেন।
তবে প্রথম সেটের ক্লান্তি দ্বিতীয় সেটের শুরুতেই বেশ ভালোভাবে ঝেড়ে ফেললেন নাদাল। নিজের সব কটি সার্ভ তো জিতেছেনই, ফেদেরারের প্রথম দুটি সার্ভই ব্রেক করেছেন। তাতে সুইস তারকার আনফোর্সড এররের দায় যেমন আছে, তেমনি তাতে চার গেম পর নাদালের পক্ষে ফল দাঁড়ায় ৪-০! সেট নাদাল জিতে যান ৬-৩-এ।
দুই সেটে ১-১ সমতা। প্রথমে ফেদেরার, পরে নাদাল। ম্যাচের নিয়ম মেনে পরের গেম ফেদেরারেরই জেতার কথা। জিতলেনও—বলতে গেলে আগের সেটের প্রতিশোধ নিয়ে। নাদালের সার্ভ করা প্রথম ও তৃতীয় গেম ব্রেক করেছেন, নিজের সার্ভিসে তো ছিলেন আরও দুর্দান্ত। ফল? সেট জিতলেন ৬-১–এ।
চতুর্থ সেটে এবার আবার নাদালের পালা। ফেদেরারের সার্ভ করা দ্বিতীয় গেমই ব্রেক করলেন, সেট জিতলেন ৬-৩ গেমে। তবে এই সেটের পঞ্চম গেমের শেষ পয়েন্টটি আলাদা করে নজর কাড়ল। নাদাল পয়েন্টটি পেয়ে সেটে এগিয়ে গিয়েছিলেন ৪-১ গেমে, তবে ওই একটি পয়েন্টই যেন হয়ে থাকল নাদাল-ফেদেরার দ্বৈরথের স্মারক! এখানে শেষ বলে কিছু নেই। চমকও যেখানে অবিশ্বাস্য মনে হয়, এই জুটির দ্বৈরথ সেটিকেই তখন তুলে আনে বাস্তবের জমিনে। এই গেমেও যেমন হলো। পয়েন্ট পেলে গেম নাদালের, এমন সময় বেশ কয়েকটি র‍্যালির পর ফেদেরারের ফোরহ্যান্ড রিটার্ন... একেবারে কোর্টের ডান কোণে! মনে হচ্ছিল পয়েন্ট সুইস কিংবদন্তিরই হচ্ছে। কিন্তু তখনই চমক নাদালের! হার মানতে যে রাজি নন স্প্যানিশ ম্যাটাডোর! পুরো রড লেভার অ্যারেনাকে চমকে দিয়ে উল্টো ফোরহ্যান্ডে নিচু ক্রস কোর্ট রিটার্ন মারলেন, যা ঠেকানোর কোনো উপায় ছিল না ফেদেরারের! অবিশ্বাস্য!
তবে প্রথম চার সেটে দুজনের ২-২ সমতা থাকাতে সুবিধাই হলো। দুজনের ম্যাচ পাঁচ সেটে না গড়ালে হয় নাকি! তবে ফেদেরারের ওপর এর প্রভাব পড়ল ঠিকই, সেটের আগেই মেডিকেল টাইম আউট নিলেন। তবে উল্টো শুরুতেই ধাক্কা! তাঁর দ্বিতীয় সার্ভই ব্রেক করেন নাদাল। তবে সেটি যেন ঘা দিয়ে গেল ফেদেরারের অহমে। উল্টো ব্রেক করে দিলেন নাদালের সার্ভ। একবার নয়, দুই বার! নাদালের সার্ভ করা তৃতীয় ও চতুর্থ—টানা দুই গেম ব্রেক করে এগিয়ে গেলেন সেটে। ৩-১-এ নাদাল।
আর ম্যাচের সেরা মুহূর্তটা যেন জন্মাল এরপরই। কী অ​বিশ্বাস্যভাবে ঘুরে দাঁড়ালেন ফেদেরার! নাদাল ও তিনেই আটকে রইল, ৬ সেটের অঙ্ক মিলিয়ে দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেলেন ফেদেরার। নিজের রেকর্ডটা নিয়ে গেলেও আরও এক উচ্চতায়।
১৮তম গ্র্যান্ড স্লাম এনে দিল হাসিমাখা ক্রন্দন!
তা-ই তো হওয়ার কথা। আজ ফেদেরারের কাঁদার দিন! আনন্দের কান্না!

রূপকথা লিখেই যাচ্ছেন ফেদেরার

রূপকথা লিখেই যাচ্ছেন ফেদেরার

ফিনিক্স পাখিও ঈর্ষা করবে ফেদেরারকে!

ফিনিক্স পাখিও ঈর্ষা করবে ফেদেরারকে!

default image

ডেভিস কাপে বদল

default image

মেক্সিকোতেও হারেন নাদাল!

মন্তব্য ( ৬ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

default image

জোকোভিচের হার

দুবাই ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডেই হেরেছেন রজার ফেদেরার। বুধবার এমন একজনের কাছে...
default image

ফেদেরার–নাদাল জুটি!

রজার ফেদেরার বনাম রাফায়েল নাদাল। টেনিস সার্কিটে বিখ্যাত দ্বৈরথের একটি।...
নাদালকে ছেড়ে যাচ্ছেন চাচা

নাদালকে ছেড়ে যাচ্ছেন চাচা

বছর দুয়েক আগের ঘটনা। উইম্বলডনের দ্বিতীয় রাউন্ডে অখ্যাত ডাস্টিন ব্রাউনের কাছে...
default image

ক্ষমা ও ক্ষোভ

ফেড কাপের প্রথম রাউন্ডে জার্মানির আন্দ্রেয়া পেতকোভিচের মুখোমুখি...
নেপথ্যে তিন কৌশল

প্রধানমন্ত্রীর আগাম নির্বাচনী প্রচার নেপথ্যে তিন কৌশল

শুনছি ২৫ মে চুক্তি হবে, আমি কিচ্ছু জানি না

তিস্তা চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা শুনছি ২৫ মে চুক্তি হবে, আমি কিচ্ছু জানি না

তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

ক্রেস্টের স্বর্ণের ১২ আনাই মিছে! তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

এটি ভৌতিক কোনো সিনেমার কাহিনি নয়

এটি ভৌতিক কোনো সিনেমার কাহিনি নয়

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info