সব

বিচিত্র

‘আত্মপ্রেমী’ চক্রবাক

বিবিসি
প্রিন্ট সংস্করণ

পাখিটি নিজের প্রতিবিম্বের দিকে মুগ্ধ হয়ে তাকিয়ে ছিল। বন্য প্রাণী বিশেষজ্ঞ কেইটলিন রেনর সেই ছবি তুললেন। আর অনলাইনে ছবিটা প্রকাশের আগে লিখলেন, ‘আমি ঠিক আছি। নিজের দিকে তাকিয়ে থাকতে খুব ভালোবাসি।’

রেনর ভেবেছিলেন, ছবিটা হয়তো লোকজনের নজর এড়িয়ে যাবে। কিন্তু হলো বিপরীত। ‘আত্মপ্রেমী’ পাখিটি ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের কাছে রীতিমতো তারকা বনে গিয়েছে!

অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনে অবস্থিত কুইন্সল্যান্ড ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজিতে ওই চক্রবাক পাখি ক্যামেরাবন্দী হয়েছিল। ছবিটা ইন্টারনেটে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। টুইটারে এক ব্যক্তি লিখেছেন, ‘এটা নার্সিসিস্ট স্বভাবের পাখি। কেবল আমরাই, আত্মকেন্দ্রিক মানুষেরা, যে নিজেদের ছবি বা প্রতিবিম্বের দিকে অপলক তাকিয়ে থাকি, তা নয়।’

ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল ছাত্র ফেসবুকে একটি পেজ খুলে ছবিটি নিয়ে আলোচনায় মেতেছেন। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মার্ক জিটা। ওয়াইল্ডকেয়ার অস্ট্রেলিয়া নামের একটি বন্য প্রাণী সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবী রেনর অবশ্য মনে করেন, চক্রবাকের এমন আচরণ অস্বাভাবিক কিছু নয়। এই পাখি মূলত নিশাচর। তাই নিজের প্রতিবিম্ব দেখে অভ্যস্ত নয়। তবে ওরা আগ্রাসী নয়। অন্য পাখির প্রতিবিম্ব দেখেও তারা একই রকম মুগ্ধ হয়।

জিটা বলেন, ‘পাখিটি একধরনের রূপক। আমাদের সবার জীবনে এমন মুহূর্ত এসেছে, যখন দীর্ঘক্ষণ ধরে আয়নার দিকে তাকিয়েছি। কেন এমন করছি, কী কারণে এমনটা ঘটছে?’

ব্রিসবেনের সিটি কাউন্সিলর রায়ান মারফি চলতি বছরের শুরুর দিকে চক্রবাকের একই ধরনের একটা ছবি অনলাইনে প্রকাশ করেছেন। তিনি ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমি এ রকম ঘটনায় অবাক হইনি। তবে পাখিটার মুগ্ধতার ধরন দেখে মানুষের চেয়ে বেশিই মনে হয়েছিল।’

মারফি আরও বললেন, সেই পাখি নাকি রাতে চলে গিয়ে পরদিন আবার ফিরে আসত। টানা এক মাস এ রকম করেছে। অনেকটা সেই ‘অফিস-কর্মীর’ মতো, যে কিনা এদিক-সেদিক ঘোরাঘুরি করে আবার হাজিরা দিতে বাধ্য হয়! 

 

১২ বছর বয়সে গাড়িতে ১৩০০ কিমি পাড়ি!

১২ বছর বয়সে গাড়িতে ১৩০০ কিমি পাড়ি!

৫ গাড়ির যন্ত্রাংশ দিয়ে লিমোজিন!

৫ গাড়ির যন্ত্রাংশ দিয়ে লিমোজিন!

বিজ্ঞানের জন্য ৫০০ শহরে মিছিল

বিজ্ঞানের জন্য ৫০০ শহরে মিছিল

জন্ম যদি বঙ্গে তব...

জন্ম যদি বঙ্গে তব...

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি

বাংলার মুখ আমি দেখিয়াছি

বরিশালের আলপথ, অলিগলি, নদীর পাড়ে হাঁটতেন জীবনানন্দ দাশ। কর্মজীবনও কাটিয়েছেন...
ফারজানা আক্তার
তুমি যাবে ভাই যাবে মোর সাথে

তুমি যাবে ভাই যাবে মোর সাথে

সড়কে, বাড়ির দেয়ালে, প্রচ্ছদ চিত্রকর্ম দিয়ে সুসজ্জিত অবস্থায় দেখে আপনার মনে...
সুজীৎ কুমার দাস
বাংলার মাটি দুর্জয় খাঁটি

বাংলার মাটি দুর্জয় খাঁটি

সাম্যের কবি চিরতারুণ্যের কবি সুকান্ত ভট্টাচার্যের বাড়ি আমরা দেখে আসতে পারি...
দিগন্ত বৈদ্য
জাগো বাহে কোনঠে সবায়

জাগো বাহে কোনঠে সবায়

বছরে দুই-একবার জন্মভূমির মায়ার টানে বাড়িতে ফিরে আসতেন আর পুরো বাড়ি ও শহর ঘুরে...
আসিফ ওয়াহিদ
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info