সব

তদন্ত কর্মকর্তার আচরণ অগ্রহণযোগ্য

তনু হত্যার তদন্ত

প্রিন্ট সংস্করণ

কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ছাত্রী ও নাট্যকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যার এক বছর পার হলেও তদন্তকাজে কোনো অগ্রগতি না হওয়া সংশ্লিষ্টদের গাফিলতি ও দায়িত্বহীনতারই পরিচায়ক। একটি মেয়ে সুরক্ষিত সেনানিবাসের ভেতরে নিহত হলেন, আর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঘাতকদের খুঁজে পাবে না, এটি কোনোভাবেই মানা যায় না।
গত বছরের ২০ মার্চ তনু হত্যার পর সারা দেশে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছিল। শিক্ষার্থী, সংস্কৃতিসেবীসহ সর্বস্তরের মানুষ তনু হত্যার বিচারের দাবিতে রাজপথে নেমে এসেছিল। তখন সরকারের পক্ষ থেকে হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু গত এক বছরে মামলা সিআইডিতে হস্তান্তর ও তিনবার তদন্ত কর্মকর্তা বদলালেও ফলাফল শূন্যই বলা যায়।
সর্বশেষ তদন্ত কর্মকর্তা জালালউদ্দিন আহমদ তদন্তকাজ না এগোনোর পক্ষে যে যুক্তি দিয়েছেন, তা-ও হাস্যকর। তাঁর দাবি, শীতকালীন মহড়ার কারণে তিন মাস তদন্তকাজে ধীরগতি ছিল। শীতকালীন মহড়ার কারণে একটি চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার তদন্তকাজ থেমে থাকবে কেন? তনু হত্যার ঘটনায় শতাধিক সামরিক ও বেসামরিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন। কতজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে, সেটি গুরুত্বপূর্ণ নয়; গুরুত্বপূর্ণ হলো সেই জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা হত্যার কোনো সূত্র বের করতে পেরেছেন কি না?
প্রথম আলোর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে তনুর মা আনোয়ারা বেগম ক্ষোভের সঙ্গে বলেছেন, তদন্ত কর্মকর্তা তাঁদের চুপ থাকতে বলেছেন। টিভিতে তনুর ছবি না দেখাতে বলেছেন। একজন তদন্ত কর্মকর্তার এ কী ধরনের আচরণ? সন্তানহারা মা মেয়ে হত্যার বিচার চাইতে পারবেন না?
তদন্ত কর্মকর্তা যদি সত্যি সত্যি তাঁর কাজে আন্তরিক হতেন, তাহলে তনুর মা ও পরিবারের অভিযোগ এবং সন্দেহ আমলে নিয়েই তদন্তকাজ পরিচালনা করতেন। তাঁদের কথা শোনার মতো ঔদার্য দেখাতেন। একটি হত্যারহস্য উদ্ঘাটনের জন্য এক বছর কম সময় নয়। অবিলম্বে অপরাধীদের চিহ্নিত করাই তাঁদের কর্তব্য। সন্তানহারা মা–বাবাকে ভয় দেখানো নয়। এ ব্যাপারে দৃশ্যমান বা অদৃশ্যমান বাধা থাকলে সেটিও তাঁদের জনসমক্ষে প্রকাশ করা উচিত।

default image

সরকারকে জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ নিতে হবে

default image

সত্য উদ্‌ঘাটন করে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নিন

default image

পোশাকশ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠা আর কত দূর?

default image

স্টেন্টের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য মানতেই হবে

মন্তব্য ( ১ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

default image

আর্সেনিকের বিপদ জনস্বাস্থ্যের বড় হুমকির প্রতি সরকার কেন উদাসীন?

যে দেশের ৩ কোটি ২০ লাখ মানুষ আর্সেনিক বা সেঁকো বিষের ঝুঁকিপূর্ণ পানি পান...
default image

বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম নগরীতে জলাবদ্ধতা সিটি করপোরেশনকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে

নিষ্কাশন (ড্রেনেজ) ব্যবস্থা বলে তেমন কিছু যে চট্টগ্রাম শহরে কার্যকর নেই, তা...
default image

দুর্গত এলাকা ঘোষণা করা হোক হাওরে মানবিক বিপর্যয়

সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোনার হাওরাঞ্চল ভারত থেকে আসা...
default image

আইনজীবীর ভুল, না অন্য কিছু? মেয়রের বিরুদ্ধে পরোয়ানা

জ্ঞাত-আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও তথ্য গোপনের মামলায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের...
এসএসসির ফল প্রকাশ ৪ মে

এসএসসির ফল প্রকাশ ৪ মে

আগামী ৪ মে (বৃহস্পতিবার) এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে।...
চার সাংসদকে নিয়ে কাদেরের বৈঠক

চার সাংসদকে নিয়ে কাদেরের বৈঠক

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলের দুর্বলতা ও সমস্যা চিহ্নিত করতে ঢাকার আশপাশের...
চলনবিলে তলিয়ে যাচ্ছে পাকা ধান

পাকা ধান ঘরে তুলতে প্রশাসনের মাইকিং চলনবিলে তলিয়ে যাচ্ছে পাকা ধান

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জলাভূমি হাওরে অকালবন্যায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির পর এবার...
ভাস্কর্য নিয়ে যাতে অরাজক পরিস্থিতি না হয়: আইনমন্ত্রী

ভাস্কর্য নিয়ে যাতে অরাজক পরিস্থিতি না হয়: আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণের ভাস্কর্য সরানো হবে কি...
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info