ক থো প ক থ ন

‘আমার কোনো অবসর নেই’

বিনোদন প্রতিবেদক | আপডেট: | প্রিন্ট সংস্করণ

ফাহমিদা নবীফাহমিদা নবী। সংগীতশিল্পী। সম্প্রতি অভিনয় করেছেন বিজ্ঞাপনচিত্রে। আজ বাজারে আসছে ফাহমিদা নবীর নতুন অ্যালবাম। নাম ইচ্ছে হয়। প্রকাশ করেছে লেজারভিশন। আজ সন্ধ্যায় অ্যালবামটির মোড়ক খুলবেন শিল্পী শাহাবুদ্দীন।
ইচ্ছে হয়...
ইচ্ছে হয় আমার একক গানের ১২ নম্বর অ্যালবাম। গানগুলোর সুর করেছেন রেনেসাঁ ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য নকিব খান ও পিলু খান। গানগুলো লিখেছেন জুলফিকার রাসেল। নকিব ও পিলু খুব মেলোডিয়াস সুর করেন। ভালো কথা, চমৎকার সুর, আর আমিও শ্রোতাদের ভালো কিছু গান উপহার দেওয়ার চেষ্টা করেছি।  
ফাহমিদা নবীর যত ইচ্ছে...
আমার তো অনেক ধরনের ইচ্ছে আছে। সব মানুষ হাসবে, সব মানুষ ভালো থাকবে। নিজেদের ভুলত্রুটিগুলো বুঝতে পেরে আমরা সংশোধিত হয়ে সামনের দিকে এগিয়ে চলব। আর চাই আলোকিত মানুষ হতে।
প্রথম গান গাওয়া...
আমি প্রথম গান করি ১৯৭৮ সালে। বিটিভির জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘চতুরঙ্গ’তে। আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ ছিলেন অনুষ্ঠানটির উপস্থাপক। কাওসার আহমেদ চৌধুরীর লেখা ‘এই অন্ধ কারায় বসে দিন চলে যায়’ গানটির সুর করেন লাকী আখন্দ।
লুকোচুরি লুকোচুরি গল্প’...

এনামুল করিম নির্ঝরের আহা! ছবির এই গানটি দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। আমার জীবনে কিন্তু কোনো লুকোচুরির গল্প নেই। আমি খুবই খোলা মনের মানুষ।

সুরের ভুবনে ফাহমিদা নবী...

বাসায়, বাসার বাইরে সবখানে সব সময় সুরের মধ্যে থাকতে পছন্দ করি। সুর ছাড়া একটা মুহূর্তও থাকতে পারি না। সুরের অঙ্ক, সুরের জটিলতা জীবনকে অন্য রকম করে তোলে। সুরের ভুবন এমনই এক ভুবন, যা শুধু মানুষকে আলোকিত করে।

বাবা মাহমুদুন্নবীর প্রভাব...

আমার বাবা মেলোডিয়াস গানই করতেন। তাঁর কণ্ঠে বিষণ্নতার সুর দারুণ মানিয়ে যেত। সবাই বলে, আমার কণ্ঠে বাবার মতোই বিষণ্নতার সুর ভালো লাগে। আমি যেকোনো গানের গল্পের ভেতর ঢুকে যাওয়ার চেষ্টা করি। বাবার প্রভাব আমার গানের জীবনে অনেক বেশি।

এই ঈদে...

এবার ঈদে প্রায় সব কটি টিভি চ্যানেলে দর্শকেরা আমাকে দেখতে পাবেন। কোনোটিতে সরাসরি গানের অনুষ্ঠান, আবার কোনোটিতে অতিথি হয়েছি। থাকব রেডিওর অনুষ্ঠানেও।

আমার অবসর...

আমার কোনো অবসর নেই। সারাক্ষণ কাজের মধ্যে থাকতে পছন্দ করি।

মনজুরকাদের

পাঠকের মন্তব্য ( ১ )

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনি কি পরিচয় গোপন রাখতে চান
আমি প্রথম আলোর নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

View Mobile Site
   
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫
ফোনঃ ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্সঃ ৯১৩০৪৯৬, ই-মেইলঃ info@prothom-alo.info
 
topউপরে