মৃত্যুর আগে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ওম পুরি

পৃথিবী ছেড়ে যাওয়ার পর আমার অবদান দৃশ্যমান হবে

বিনোদন ডেস্ক | আপডেট: | প্রিন্ট সংস্করণ

আক্রোশ ছবিতে নাসিরুদ্দিন শাহের সঙ্গে ওম পুরিতাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টে ঢুকতেই দেখা গেল মৃত্যুর ঘণ্টা কয়েক আগে করা একটি টুইট। হঠাৎ মনে স্বস্তি ফিরে এল। কিন্তু সময়ের ঘরটা দেখার পর যখন চোখ পড়ল সেই টুইটে, তখনই বোঝা গেল আসলে টুইটকারী ব্যক্তিটি ওম পুরি নন। তাঁরই চেনা কেউ তাঁর হয়ে টুইটটি করেছেন। লিখেছেন এই শিল্পীর জন্ম ও মৃত্যুর দিনক্ষণ। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টা ৩০ মিনিটে দেওয়া সেই টুইটটি ছিল, ‘ওম পুরি। অক্টোবর ১৮, ১৯৫০–জানুয়ারি ৬, ২০১৭।’ ব্যস, এটুকু দিয়েই যেন এক গুণী অভিনেতার চিরবিদায়ের বার্তাটি ‘অফিশিয়াল’ করা হলো।
ছেলে ঈশান ও স্ত্রী নন্দিতার সঙ্গে ওম পুরিগতকাল ভোরে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাসায় মারা যান বলিউডের গুণী অভিনেতা ওম পুরি। সন্ধ্যায় সম্পন্ন হয় তাঁর শেষকৃত্যের আয়োজন। পুরো বলিউড ওম পুরির প্রয়াণে প্রকাশ করে নিজ নিজ শোক। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার থেকে শুরু করে ভারতের চলচ্চিত্রজগতে ওম পুরির কাছের সবাই এই শিল্পীর প্রয়াণে শোক প্রকাশ করেন। অনেক দিনের পুরোনো বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষী নির্মাতা শ্যাম বেনেগাল, গোবিন্দ নিহালিনি, গুলজার, নাসিরুদ্দিন শাহ, শাবানা আজমি—সবাই ওম পুরির শেষযাত্রায় অংশ নেন। এ সময়ে বলিউড তারকারা ওম পুরির মৃত্যুতে নিজেদের কষ্ট ও শোকের কথা নানা মাধ্যমে জানান।
ওম পুরি (জন্ম: অক্টোবর ১৮, ১৯৫০ মৃত্যু: জানুয়ারি ৬, ২০১৭)মৃত্যুর পরপরই ইন্দো এশিয়ান নিউজ সার্ভিস (আইএএনএস) প্রকাশ করে ওম পুরির একটি সাক্ষাৎকার, যা নেওয়া হয় গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর, মৃত্যুর মাত্র ১৪ দিন আগে। সেখানেই ওম পুরি জানিয়েছিলেন তাঁর মৃত্যু নিয়ে ভাবনাগুলোর কথা। ওম পুরি কথায় কথায় বলেন, ‘পৃথিবী ছেড়ে যাওয়ার পর অভিনেতা হিসেবে আমার অবদান দৃশ্যমান হবে। এবং বিশেষ করে তরুণেরা দেখবে আমার ছবিগুলো।’
৬৬ বছর বয়সী এই অভিনেতা সেই সাক্ষাৎকারে বলিউড নিয়ে বলেন, আশি ও নব্বইয়ের দশকের ভারতীয় ছবির তুলনা হয় না, যে সময় শ্যাম বেনেগাল, গোবিন্দ নিহালিনি, বাসু চ্যাটার্জি, গুলজার, মৃণাল সেনের মতো নির্মাতারা সিনেমা বানাতেন।’
সেই সাক্ষাৎকারে নিজের সেরা ছবি হিসেবে ওম পুরি ‘অর্ধসত্য’, ‘আক্রোশ’-এর মতো ছবিগুলোর নামই বলেন।
মৃত্যুর আগে ওম পুরি অভিনয় করছিলেন টিউবলাইট ও মান্টো ছবিতে। মুক্তির অপেক্ষায় ছিল রামভজন জিন্দাবাদ নামের একটি রাজনৈতিক শ্লেষাত্মক ছবি।
২০১৩ সালে স্ত্রী নন্দিতার সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় তাঁর। সেই বছর এই অভিনেতার বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ এনে মামলা করেন নন্দিতা। এমনকি ওম পুরির ছেলে ঈশানও সেই আইনি জটিলতার কারণে মায়ের সঙ্গেই আলাদা বাসায় থাকতেন। আইএএনএস।

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনি কি পরিচয় গোপন রাখতে চান
আমি প্রথম আলোর নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

View Mobile Site
   
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ই-মেইল: info@prothom-alo.info
 
topউপরে