নকল গানটি রাহমানের নয়

বিনোদন প্রতিবেদক | আপডেট: | প্রিন্ট সংস্করণ

এ আর রাহমান
আসিফ আকবরদিন কয়েক ধরেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভেসে বেড়াচ্ছে যে অস্কারজয়ী ভারতীয় সংগীত পরিচালক এ আর রাহমান নাকি নকল করেছেন বাংলাদেশি প্রীতম আহমেদের কথা ও সুরে আসিফ আকবরের গাওয়া ‘তুমি নেই বলে’ গানটি। এই বিতর্ক আরও বেশি আলোচনায় উঠে আসে যখন গত সোমবার রাতে প্রীতম ও আসিফ এ নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন। কিছু সংবাদমাধ্যম গান চুরির বিতর্কটি নিয়ে খবরও প্রকাশ করে। কিন্তু দিন শেষে বিভিন্ন মাধ্যম পর্যবেক্ষণ করে জানা যায়, বিতর্কিত সেই গানের সুর আসিফ ও প্রীতমের গানটির সঙ্গে মিলে গেলেও এটি আসলে রাহমানের সৃষ্টি নয়। গতকাল মঙ্গলবার গায়ক আসিফও বিষয়টি তাঁর ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে পরিষ্কার করেন।নকল করা ‘তু জো নেহি’ গানটির গায়ক কেশব গোস্বামী
সাধারণত ভিডিও দেখার ওয়েবসাইট ইউটিউবে হলিউড কিংবা বলিউডের বড় কোনো ছবি মুক্তির আগে বিভিন্ন ভুঁইফোড় চ্যানেল নকল ট্রেলার ও গান ছাড়ে। এই নকল ট্রেলার ও গানগুলো সেই ছবির নয়। সেই ঘটনাই ঘটেছে মনি রত্নম প্রযোজিত ও সাদ আলী পরিচালিত বলিউড সিনেমা ওকে জানুর বেলায়। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন আদিত্য রয় কাপুর ও শ্রদ্ধা কাপুর। ছবিতে মোট তিনটি গান রয়েছে: ‘ওকে জানু’, ‘এন্না সোনা’ ও ‘দ্য হাম্মা সং’। কিন্তু নকল যে গানটি নিয়ে সম্প্রতি তোলপাড় শুরু হয়েছে, সেই গানের নাম ‘তু জো নেহি’। এই গানটি ‘মিউজিক ওয়ার্ল্ড’ নামের একটি চ্যানেল থেকে গত ১১ ডিসেম্বর ইউটিউবে দেওয়া হয়। এতে গানের বিবরণে শিল্পীর নাম লেখা হয় কেশব গোস্বামী। আর সুরকার হিসেবে দেওয়া হয় এ আর রাহমানের নাম। মূলত বিতর্কের শুরু সেই গানের ভিডিওটি দেখেই। কারণ, গানটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ওকে জানু ছবির ট্রেলারের বিভিন্ন অংশবিশেষ।বলে রাখা ভালো, ২০০৩ সালে আসিফের গাওয়া ‘তুমি নেই বলে’ গানটি মুক্তি পেয়েছিল। নকল যে হিন্দি গানটি নিয়ে বিতর্ক, সেটি গেয়েছেন কেশব গোস্বামী নামের এক ভারতীয় গায়ক। ফেসবুক, ইউটিউব, সাউন্ডক্লাউডসহ বিভিন্ন ওয়েবসাইট থেকে জানা যায়, এই কেশব গোস্বামী খুব বেশি খ্যাতিসম্পন্ন গায়ক নন। তিনি বাংলায়ও গান করেন। ফেসবুকে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো সাড়া দেননি।এদিকে গতকাল দেওয়া একটি স্ট্যাটাসে বিতর্কের এই বিষয়টি স্পষ্ট করেন গায়ক আসিফ। তিনি লেখেন, ‘শ্রদ্ধেয় এ আর রাহমান বীর দিগ্বিজয়ী মিউজিশিয়ান, ওনার কেটে ফেলে দেওয়া নখের যোগ্যতাও আমার নেই। ওনার প্রতি অসম্মান দেখানোর মতো ধৃষ্টতাও আমার নেই। এখানে তৃতীয় একটা পক্ষ এই অনৈতিক কাজটা করেছে এ আর রাহমান স্যারের নাম ভাঙিয়ে। হঠাৎ করে এ রকম একটা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় আমি নিজেই বিব্রত। ফোনে, ম্যাসেঞ্জারে আমার শুভাকাঙ্ক্ষীরা প্রকৃত তথ্য জানিয়ে লিখেছেন, এটা ওকে জানু ছবির অফিশিয়াল ট্র্যাক নয়।’

 

পাঠকের মন্তব্য ( ২ )

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনি কি পরিচয় গোপন রাখতে চান
আমি প্রথম আলোর নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

View Mobile Site
   
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ই-মেইল: info@prothom-alo.info
 
topউপরে