সব

প্যারিস জলবায়ু সম্মেলন ও বাংলাদেশ

সব প্রত্যাশা পূরণ হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট সংস্করণ
video

চার দফা দাবিতে প্রকৃচি-বিসিএস সমন্বয় কমিটি ও মৎস্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন l ছবি: প্রথম আলোপ্যারিস সম্মেলনের মাধ্যমে বিশ্ব যে দলিলটি অনুমোদন করেছে, তাতে বাংলাদেশের প্রত্যাশিত সবকিছু নেই। তবে বেশ কিছু দুর্বলতা সত্ত্বেও জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বিশ্ব এই প্রথমবারের মতো একটি চুক্তি করার ব্যাপারে সর্বসম্মতিক্রমে একমত হয়েছে, সেটাও কম নয়। আগামী বছর জাতিসংঘ সদর দপ্তরে প্যারিসে অনুমোদন হওয়া ওই চুক্তি স্বাক্ষর হলে তা বাস্তবায়নের জন্য সরকারকে জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য একটি স্বতন্ত্র কমিশন বা মন্ত্রণালয় গঠন করতে হবে। গতকাল বুধবার প্রথম আলো কার্যালয়ে ‘প্যারিস জলবায়ু সম্মেলন ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা এসব কথা বলেন। বৈঠকে দুজন বক্তা প্যারিস চুক্তির বিভিন্ন দুর্বল দিক তুলে ধরে ওই চুক্তিতে বাংলাদেশকে স্বাক্ষর না করার আহ্বান জানান। তাঁরা ওই চুক্তির মাধ্যমে প্রধান কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলো জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষয়ক্ষতির দায় এড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেন। এই চুক্তির মাধ্যমে চলতি শতাব্দীর মধ্যে বিশ্বের তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি বাড়তে না দেওয়ার অঙ্গীকার বাস্তবায়িত হবে না বলেও তাঁরা আশঙ্কা করেন।
তবে বৈঠকে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক আইনুন নিশাত প্যারিস সম্মেলনটিকে সফল হিসেবে চিহ্নিত করে বলেন, যেকোনো বৈশ্বিক চুক্তি করার প্রক্রিয়াটি অত্যন্ত জটিল। বাংলাদেশ চাইলে ওই চুক্তিতে স্বাক্ষর না-ও করতে পারে। এ জন্য বাংলাদেশের ওপর কোনো চাপ নেই। ১৫৮টি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা প্রথমবারের মতো বিশ্বের কোনো একটি সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন—এই তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, নাগরিক সংগঠনগুলো খসড়া প্রস্তাবের নানা দুর্বল দিক ও সমস্যা তুলে ধরে বিশ্ব নেতাদের ওপর চাপ তৈরি করেছে, যা রাষ্ট্রগুলোকে একটি ন্যূনতম সমঝোতায় একমত হতে বাধ্য করেছে।
পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের সচিব কামাল উদ্দিন আহমেদ প্যারিস সম্মেলনকে সফল হিসেবে তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশ অনেক প্রস্তুতি নিয়ে সম্মেলনে গিয়েছিল। বিভিন্ন বৈঠকে বাংলাদেশ তার স্বার্থ ও দাবি তুলে ধরেছে। প্যারিস সম্মেলনের আলোকে বাংলাদেশ আগামী দিনগুলোতে কী করবে, তা নির্ধারণ করতে পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ে আলাদা একটি উইং গঠন করতে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।
বাংলাদেশ সেন্টার ফর অ্যাডভান্স স্টাডিজের (বিসিএএস) নির্বাহী পরিচালক আতিক রহমান প্যারিস চুক্তিতে অনেক দুর্বলতা ও ফাঁকফোকর আছে মন্তব্য করে বলেন, প্যারিস চুক্তিতে সব দেশের সব দাবি থাকবে, এটা আশা করাও ঠিক না। নানা পথ ও মতের ১৯৫টি দেশ একটি বিষয়ে একমত হওয়া অনেক কঠিন ব্যাপার। তবে প্যারিস-পরবর্তী পদক্ষেপগুলো নিতে বাংলাদেশকে জলবায়ু বিষয়ে একটি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন কমিশন গঠনের পরামর্শ দেন তিনি।
যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া গবেষণাবিষয়ক সংস্থা নোয়ার ক্লাইমেট প্রেডিকশন সেন্টারের গবেষক রাশেদ চৌধুরী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্বের আবহাওয়া চক্রে বদল আসছে। বৈশ্বিক আবহাওয়াব্যবস্থায় এল নিনো ও লা নিনা হচ্ছে—এমন বছরের সংখ্যা বাড়ছে। আবহাওয়ার এসব বিরূপ প্রভাব মোকাবিলা করতে না পারায় বিশ্বের অনেক দেশেই রাজনৈতিক অস্থিরতা দেখা দিচ্ছে। এতে সরকারকে আবহাওয়ার ওই বদলগুলোকে বিবেচনা করে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নিতে হবে।
সেন্টার ফর গ্লোবাল চেঞ্জের নির্বাহী পরিচালক আহসান উদ্দিন আহমেদ প্যারিস চুক্তিকে তাসের ঘরের সঙ্গে তুলনা করে বলেন, ‘ওই চুক্তি থেকে যে কেউ যেকোনো সময় বেরিয়ে যেতে পারে। আর তা যদি পুরোপুরি বাস্তবায়িতও হয়, তাহলেও এই শতাব্দীর মধ্যে বিশ্বের তাপমাত্রা আরও ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়বে। অথচ আমরা চুক্তিতে বলছি, এই শতাব্দীর মধ্যে বিশ্বের তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখব। তাপমাত্রা বাড়ায় বাংলাদেশে দুর্যোগ ও সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়বে এবং আমাদের মতো দেশে ঘরবাড়িছাড়া বা বাস্তুচ্যুত মানুষের সংখ্যা বাড়বে। কিন্তু তাদের পরিকল্পিতভাবে পুনর্বাসনের কোনো বিষয় চুক্তিতে নেই। অর্থায়নের ব্যাপারে কোনো নিশ্চয়তা নেই।’ এসব যুক্তি তুলে ধরে তিনি চুক্তিতে বাংলাদেশের স্বাক্ষর না করার আহ্বান জানান।
বেসরকারি সংস্থা কোস্ট ট্রাস্টের প্রধান নির্বাহী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ‘গত এক যুগে কুতুবদিয়ার আয়তন ৭৪ বর্গকিলোমিটার থেকে ভেঙে ২৫ বর্গকিলোমিটার হয়েছে। আমার বাড়ি চট্টগ্রামের কুতুবদিয়ায়। এ পর্যন্ত আমার বাড়ি তিনবার ভেঙেছে। আমি একটি এনজিওতে কাজ করি বলে ঢাকায় এসে ভালোমতো বসবাস করতে পেরেছি। কিন্তু কুতুবদিয়ার অনেকেই কক্সবাজার, চট্টগ্রামসহ অনেক এলাকায় বস্তি বানিয়ে থাকছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে এমনটা ঘটলেও প্যারিস চুক্তিতে ওই সব জলবায়ু উদ্বাস্তুদের রক্ষার কোনো অঙ্গীকার নেই।’ বিশ্বের অনেক দেশই জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আলাদা মন্ত্রণালয় গঠন করে সফল হয়েছে—এই মন্তব্য করে বাংলাদেশকেও ওই পথ অনুসরণের পরামর্শ দেন তিনি।
পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক মির্জা শওকত বলেন, ‘প্যারিস সম্মেলন সফল করতে ফরাসি সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে। তাদের ৬০ জন কূটনীতিক ও সবগুলো দূতাবাস সম্মেলন সফল করতে বছরের পর বছর চেষ্টা করেছে। এত জটিল একটি প্রক্রিয়া শেষ করে তারা শেষ পর্যন্ত সব দেশকে চুক্তিতে রাজি করাতে পেরেছে, যা অবশ্যই একটি বড় ধরনের সাফল্য। বাংলাদেশ তার নিজের স্বার্থ ও অবস্থান থেকে সম্মেলনে ভূমিকা রেখেছে। অনেক কিছুই হয়তো প্রত্যাশা অনুযায়ী চুক্তিতে নেই, তবে যা আছে তা-ও কম না। যেসব বিষয়ে আমাদের স্বার্থ আছে, তা ধরে সামনের দিনগুলোতে সরকার কাজ করবে।’
বৈঠকের শুরুতে প্যারিস সম্মেলনে সংবাদ সংগ্রহের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ইফতেখার মাহমুদ।
বৈঠকের সঞ্চালক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম পৃথিবীটাকে সমুদ্রে ভাসমান একটি নৌকার সঙ্গে তুলনা করে বলেন, পৃথিবীর সব মানুষ ওই নৌকায় আছে। ওই নৌকা ডুবলে সবার মৃত্যু হবে। ফলে এই পৃথিবীটাকে রক্ষায় বিশ্বের সব দেশকে একত্রে কাজ করতে হবে।
বৈঠকে প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান, সহযোগী সম্পাদক সোহরাব হাসান ও বিভিন্ন বিভাগের সাংবাদিকেরা উপস্থিত ছিলেন।

জুরাইনে বাসায় আগুন, দুই শিশুসহ দগ্ধ ৩

জুরাইনে বাসায় আগুন, দুই শিশুসহ দগ্ধ ৩

খালে পানির প্রবাহ নেই, সমস্যা গ্যাস–পানিতেও

খালে পানির প্রবাহ নেই, সমস্যা গ্যাস–পানিতেও

‘ঝিলপাড়ে শিশুপার্ক, লেক ও ওয়াকওয়ে নির্মাণ করা হবে’

‘ঝিলপাড়ে শিশুপার্ক, লেক ও ওয়াকওয়ে নির্মাণ করা হবে’

default image

হাতিরঝিলে জমজমাট নৌকাবাইচ

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

default image

উড়োজাহাজ থেকে সাত কেজি সোনা জব্দ

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে থাই এয়ারওয়েজের উড়োজাহাজ থেকে গতকাল...
স্বাধীনতা দিবসে রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রে ভিড়

স্বাধীনতা দিবসে রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রে ভিড়

লাল জামা গায়ে, মাথায় লাল-সবুজ পতাকার ব্যান্ড। আট বছরের জেরিন মা-বাবার হাত...
default image

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণহত্যা দিবস পালিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলে প্রবেশ পথেই লাশের সারি! আঁধো আলোতে...
default image

খিলক্ষেতের টানপাড়ায় ওয়াসার পানিতে ময়লা, দুর্গন্ধ

খিলক্ষেতের জামতলার টানপাড়া এলাকার ওয়াসার লাইনে ময়লা ও দুর্গন্ধযুক্ত পানি...
আতিয়া মহল থেকে উদ্ধার লাশের ডিএনএ সংগ্রহ

আতিয়া মহল থেকে উদ্ধার লাশের ডিএনএ সংগ্রহ

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার শিববাড়ি এলাকার আতিয়া মহলের নিচতলা থেকে সেনাবাহিনীর...
সন্ত্রাসবিরোধী লড়াইয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে চায় তুরস্ক

প্রধানমন্ত্রীকে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর ফোন সন্ত্রাসবিরোধী লড়াইয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে চায় তুরস্ক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফোন করে সন্ত্রাসবিরোধী লড়াইয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ...
বাসে নারী আসনে বসলে জেল-জরিমানা

বাসে নারী আসনে বসলে জেল-জরিমানা

বাসে নারী, শিশু ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য সংরক্ষিত আসনে কেউ বসলে বা তাদের...
কৌতূহলই কাল হলো তাঁদের video

কৌতূহলই কাল হলো তাঁদের

গত শনিবার সিলেটে জঙ্গি আস্তানার পাশে বোমা হামলায় পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ ছয়জন...
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info