সব

আমীর উদ্দিন দারোগার নাম বদলে ঘাট মসজিদ

প্রিন্ট সংস্করণ

পুরোনো ছবিবর্তমান ছবি
নদীর তীরে অনন্যসুন্দর একটি মসজিদ। নিচে বইঠাসহ দুটি নৌকা। একটির পাটাতনে বসে গল্প করছেন কয়েকজন। ঢাকা: ফোর ইয়ারস হিস্ট্রি ইন ফটোগ্রাফসহ বাংলাদেশের পুরোনো ছবির কয়েকটি সাইটে গ্রামীণ পরিবেশের এমন একটি ছবি পাওয়া গেল। তাতে বলা হচ্ছে বুড়িগঙ্গাতীরে আমীর উদ্দিন দারোগা মসজিদের ছবিটি ১৯১২ সালের। ইতিহাসবিদ মুনতাসীর মামুনের ঢাকা: স্মৃতি বিস্মৃতির নগরী বইটিতেও এই মসজিদ এবং আমীর উদ্দিনের বাড়ির একটি ছবি পাওয়া গেল। মসজিদটি সম্ভবত ১৮৪০ সালে নির্মিত। মুনতাসীর মামুন তথ্যসূত্র দিয়ে লিখেছেন, উনিশ শতকে ঢাকার একজন প্রতিপত্তিশালী নাগরিক ছিলেন আমীর উদ্দিন। উপাধি দেখে মনে হয় খুব সম্ভবত কোম্পানি আমলে তিনি দারোগা ছিলেন। প্রচুর অর্থ উপার্জন করেছিলেন। চাকরির উপার্জন দিয়ে ওই যুগের নব্য ধনীদের মতো আমীর উদ্দিন ত্রিপুরা জেলার বরদাখাত পরগনায় জমিদারি কিনেছিলেন, যার মৌজার সংখ্যা ছিল বাইশ। জমিদারি কেনার সঙ্গে সঙ্গে তিনি অর্জন করেছিলেন আভিজাত্যও। কিন্তু জমিদার নয়, সবাই তাঁকে দারোগা আমীর উদ্দিন নামেই চিনতেন। তিনি বুড়িগঙ্গার তীরে বিশাল একটি বাড়ি ও মসজিদ তৈরি করেছিলেন। মসজিদটিতে মোগল আমলের নির্মাণছাপ চোখে পড়ে। বুড়িগঙ্গার আশপাশে যাঁরা থাকতেন, তাঁরা ওই মসজিদে নামাজ পড়তেন। আমীর উদ্দিনের দুই ছেলে দিলওয়ার আলী ও মুনশি ইউসুফ আলী। ইউসুফ আলীর ছেলে মুনশি গোলাম মাওলার মোরগ লড়াই ও ভাটিয়ালি গানের প্রতি গভীর টান ছিল। তাঁর সময়েই জমিদারি হাতছাড়া হয়। ইতিহাসের এই বর্ণনা পড়ে বাস্তবে গিয়ে খুঁজলে এখন আর আমীর উদ্দিনের বাড়ি পাওয়া যাবে না। তবে বাবুবাজার ঘাট এলাকায় আমীর উদ্দিনের স্মৃতিসৌধ ও মসজিদটি এখনো টিকে আছে। আশপাশে উঠে গেছে বহুতল ভবন। এলাকার লোকজন অবশ্য দারোগা আমীর উদ্দিন মসজিদের বদলে এটিকে ঘাট মসজিদ হিসেবেই চেনে। বুড়িগঙ্গার তীর থেকেও মসজিদটি দেখা যায়। তবে মসজিদের আশপাশের জায়গা বেদখল হয়ে গেছে। সেখানে এখন গড়ে উঠেছে দোকান। রাখা হয়েছে ট্রাকসহ নানা ধরনের মালামাল। তবে ধুলোয় বিবর্ণ হয়ে যাওয়া মসজিদটি এখনো মনে করিয়ে দেয় ঢাকার শত বছরের পুরোনো ইতিহাস।
লেখা: শরিফুল হাসান। ছবি: হাসান রাজা

তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

default image

ঢাকা-লন্ডন অংশীদারত্ব সংলাপ আগামী সপ্তাহে

default image

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম চলবে

default image

ভৌগোলিক স্বাধীনতাও হুমকির মুখে: ফখরুল

মন্তব্য ( ৩ )

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

default image

চার মামলায় পুলিশের সম্পূরক অভিযোগপত্র প্রথম তদন্ত ভুল, বদলে গেল সাক্ষীর বয়ানও

জঙ্গি গ্রেপ্তারের ঘটনায় দায়ের করা চারটি মামলা অধিকতর তদন্ত করে সম্পূরক...
default image

পুলিশ-পোশাকশ্রমিক সংঘর্ষে আহত ২০

রাজধানীর রামপুরায় প্রধান সড়কে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পোশাকশ্রমিকদের সঙ্গে...
default image

চিড়িয়াখানার জন্য জাপানের ৪৮ লাখ টাকা অনুদান

জাতীয় চিড়িয়াখানার উন্নয়নে বাংলাদেশকে প্রায় ৪৮ লাখ ২৪ হাজার টাকার সমপরিমাণ...
নেপথ্যে তিন কৌশল

প্রধানমন্ত্রীর আগাম নির্বাচনী প্রচার নেপথ্যে তিন কৌশল

জেলা সফরের মাধ্যমে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা কার্যত শুরু করে...
শুনছি ২৫ মে চুক্তি হবে, আমি কিচ্ছু জানি না

তিস্তা চুক্তি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা শুনছি ২৫ মে চুক্তি হবে, আমি কিচ্ছু জানি না

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘শুনছি ২৫ মে...
তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

ক্রেস্টের স্বর্ণের ১২ আনাই মিছে! তদন্তের পর তদন্ত, শাস্তি হয়নি কারও

মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি, এরপর অধিকতর তদন্ত কমিটি। এর বাইরে সংসদীয় কমিটির...
এটি ভৌতিক কোনো সিনেমার কাহিনি নয়

এটি ভৌতিক কোনো সিনেমার কাহিনি নয়

বাসা ভাড়া নেওয়ার নাম করে ঘরে ঢোকেন এক তরুণীসহ চারজন। বাড়ির তত্ত্বাবধায়ককে...
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info