সব

আসামি ধরা পড়লেই হবে না, শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার শিশুর কথা উল্লেখ করে বলেন, শিশুটিকে অমানবিক ও নিষ্ঠুরভাবে নির্যাতন করা হয়েছে। আসামি ধরা পড়েছে। তবে ধরা পড়লেই তো হবে না, দ্রুত শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। তা না হলে সাক্ষীরা ম্যানেজ হয়ে গেলে শাস্তি দেওয়ার সুযোগ থাকবে না।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে কাজী রিয়াজুল হক ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে দিনাজপুরের পাঁচ বছরের শিশুসহ ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার অন্য শিশুদের দেখে বের হয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের এসব কথা বলেন।

পাঁচ বছরের এই শিশুকে গত মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ওসিসিতে ভর্তি করা হয়। ওর প্রজনন অঙ্গ, মাথা, গলা, হাত ও পায়ে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন ছিল। ঊরুতে সিগারেটের ছ্যাঁকার ক্ষত। ১৮ অক্টোবর শিশুটি নিখোঁজ হয়। পরদিন ভোরে শিশুটিকে তার বাড়ির কাছে হলুদখেতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় পাওয়া যায়। প্রথমে স্থানীয় হাসপাতাল, পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল হয়ে শিশুটি এখন ঢাকা মেডিকেলে।

রিয়াজুল হক বলেন, দিনাজপুরের ঘটনাটি অত্যন্ত বেদনাদায়ক। সভ্য সমাজ কেন, অসভ্য সমাজে কোনো পশুও এ ধরনের ঘটনা ঘটাতে পারে কি না সন্দেহ।

গত শনিবার রাজধানীর ভাটারা থানা এলাকায় নির্যাতনের শিকার আরেক শিশুর কথা উল্লেখ করে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, ১৪ বছরের এক শিশুকে এলাকার এক রাজনৈতিক দলের সভাপতির ভাই দুই সহযোগীসহ ডেকে নিয়ে তার ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। এসব ঘটনায় পুলিশের উচিত কালক্ষেপণ না করে দ্রুত তদন্ত শেষ করে আসামির বিচার শুরু করা। সরকার বাদী এসব মামলার আইনজীবীদের আন্তরিক হতে হবে। শুধু চার্জশিটের দুর্বলতার কারণে মামলা নষ্ট হয়ে যায়। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হয় না। ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার শিশুর পরিবারের পাশে এলাকার মানুষকে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান তিনি।

মেডিকেল বোর্ডের সিদ্ধান্ত : দিনাজপুরে ধর্ষণের শিকার শিশুটির জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নয় সদস্যবিশিষ্ট মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। আজ মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা শিশুটিকে দেখেছেন। মেডিকেল বোর্ডের সদস্য হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের প্রধান আশরাফ-উল হক প্রথম আলোকে বলেন, শিশুটির অবস্থা স্থিতিশীল। মানসিক বিপর্যয় কিছুটা কেটেছে। সে অন্যদের চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলার চেষ্টা করছে। শিশুটির কাছে গেলে কান্নাকাটি করে ও ব্যথা পায় বলে সামনের সপ্তাহে আরেকবার তাকে চেতনানাশক দিয়ে অচেতন করে সার্বিক অবস্থা পর্যালোচনা করা হবে।

অধ্যাপক আশরাফ-উল হক বলেন, শিশুটির শরীরে যৌনবাহিত (সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজিজ) কোনো রোগের আক্রমণ হয়েছে কি না, তা পরীক্ষা করতে হবে।
ওসিসির হিসাব : ওসিসি সূত্র জানায়, গত মাসে সর্বোচ্চসংখ্যক নির্যাতনের শিকার নারী ও শিশু বিভিন্ন সেবা নেওয়ার জন্য ওসিসিতে ভর্তি হয়। সংখ্যাটি গিয়ে ৮১ জনে পৌঁছেছে। অন্য সময় মাসে গড়ে ৫০ থেকে ৫৬ জনে সীমাবদ্ধ থাকে। গত মাসে ধর্ষণের শিকার শিশু ছিল ২৫ জন। এ তালিকায় আড়াই বছরের শিশুও ছিল। আজ ওসিসিতে থাকা ১১ জনের মধ্যে সাতজন শিশুই ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের শিকার।

ওসিসির সমন্বয়কারী বিলকিস বেগম প্রথম আলোকে বলেন, ‘বর্তমানে শিশুদের হাতেও দামি মোবাইল দেওয়া হচ্ছে এবং তারা ইন্টারনেট ব্যবহারেরও সুযোগ পাচ্ছে। ধর্ষণের শিকার শিশুরা বলছে, মোবাইলে তাদের খারাপ ছবি দেখাত ধর্ষক। সে ক্ষেত্রে ইন্টারনেটের যথেচ্ছ ব্যবহার একটি কারণ হতে পারে। মূল বিষয় হলো, অপরাধীর বয়স যা–ই হোক, তারা অপরাধটা শিখছে কোথা থেকে, সে জায়গায় হাত দিতে হবে।’

দিনাজপুরের শিশুর মানসিক অবস্থার কথা জানতে চাইলে চিকিৎসক বিলকিস বেগম বলেন, ‘আমরা চোখে দেখেই সহ্য করতে পারছি না, আর ও তো প্রতিনিয়ত ঘটনাটা মনে করছে। এ বিপর্যয় কাটাতে সময় লাগবে।’

এ কেমন বর্বরতা!

এ কেমন বর্বরতা!

ভবিষ্যতে বাজেটের ১৫ শতাংশ শিক্ষা খাতে ব্যয় হবে: শিক্ষামন্ত্রী

ভবিষ্যতে বাজেটের ১৫ শতাংশ শিক্ষা খাতে ব্যয় হবে: শিক্ষামন্ত্রী

ভিশন নকল করে বিএনপি কুকর্ম করেছে: হাছান মাহমুদ

ভিশন নকল করে বিএনপি কুকর্ম করেছে: হাছান মাহমুদ

default image

এসডিজি অর্জনে উন্নয়ন সহযোগীদের সহায়তা চাইলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

আপনার পরিচয় গোপন রাখতে
আমি নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
Show
1 2 3 4
 
আরও মন্তব্য

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

ম্যাচের রং বদলে দিল বাংলাদেশ

ম্যাচের রং বদলে দিল বাংলাদেশ

১১ বল ও ২ রান-এটুকুই লাগল ম্যাচ ঘুরে যেতে!টপ অর্ডারের এনে দেওয়া ভিত্তিতে ঝড়...
খেলা ৫ ঘন্টা ৫৮ মিনিট আগে ১১ মন্ত্যব্য
লক্ষ্মীপুরে শিশুর পায়ুপথে বাতাস ঢুকিয়ে হত্যার চেষ্টাকারী কারাগারে

লক্ষ্মীপুরে শিশুর পায়ুপথে বাতাস ঢুকিয়ে হত্যার চেষ্টাকারী কারাগারে

লক্ষ্মীপুরে রেস্তোরাঁ শ্রমিকের (১১) পায়ুপথে বাতাস ঢুকিয়ে হত্যার চেষ্টাকারী...
বাংলাদেশ ১ ঘন্টা ৪৭ মিনিট আগে মন্ত্যব্য
গোপালকৃষ্ণকে রাষ্ট্রপতি করতে তৎপর বিরোধীরা

গোপালকৃষ্ণকে রাষ্ট্রপতি করতে তৎপর বিরোধীরা

রাষ্ট্রপতি পদে বিরোধী প্রার্থী হিসেবে ক্রমেই জোরালো হয়ে উঠতে চলেছে...
আন্তর্জাতিক ২ ঘন্টা ২৬ মিনিট আগে
ভ্যাটের হার কমানো কষ্টকর: মুহিত

ভ্যাটের হার কমানো কষ্টকর: মুহিত

মূল্য সংযোজন করের (মূসক বা ভ্যাট) হার কমানো বেশ কষ্টকর বলে জানিয়েছেন...
অর্থনীতি ৫৭ মিনিট আগে
এ কেমন বর্বরতা!

এ কেমন বর্বরতা!

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে যৌতুকের টাকা না পেয়ে সাকিয়া আক্তার (৩২) নামে এক...
বাংলাদেশ ১ ঘন্টা ৮ মিনিট আগে
কুমারীত্ব বিক্রির ঘোষণা!

কুমারীত্ব বিক্রির ঘোষণা!

পড়াশোনার খরচ চালানোর পাশাপাশি একটি ফ্ল্যাট ও গাড়ি কেনার স্বপ্ন দেখছেন...
আন্তর্জাতিক ৭ মিনিট আগে
একটি পরিবারকে ভাতে মারার আয়োজন!

একটি পরিবারকে ভাতে মারার আয়োজন!

গ্রাম্য সালিসে হাজির না হওয়ার ‘অপরাধে’ নাটোরের সিংড়ার তেলীগ্রামের...
বাংলাদেশ ১ ঘন্টা ৩৪ মিনিট আগে মন্ত্যব্য
সামরিক আইন জারির হুমকি দুতার্তের

সামরিক আইন জারির হুমকি দুতার্তের

সন্ত্রাস মোকাবিলা করতে দেশজুড়ে সামরিক আইন জারি করার হুমকি দিয়েছেন ফিলিপাইনের...
আন্তর্জাতিক ৪৯ মিনিট আগে
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন    
© স্বত্ব প্রথম আলো ১৯৯৮ - ২০১৭
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভেনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা ১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ইমেইল: info@prothom-alo.info