‘ছেলের দায়ের আঘাত’

মায়ের পর বাবাও মারা গেলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ভৈরব | আপডেট: | প্রিন্ট সংস্করণ

নরসিংদীতে পারিবারিক বিরোধের জেরে ‘ছেলের দায়ের আঘাতে’ আহত মতি মিয়ার (৬০) মৃত্যু হয়েছে। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বুধবার সকালে তিনি মারা যান।
১০ অক্টোবরের ওই হামলায় ঘটনাস্থলেই মারা যান মতি মিয়ার স্ত্রী জমিলা খাতুন (৪৮)।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, মতি মিয়ার বাড়ি সদর উপজেলার শীলমান্দি ইউনিয়নের তুলসীপুর গ্রামে। তাঁর ছেলে শরীফ মিয়া (২৫) দীর্ঘদিন বিদেশে ছিলেন। বিদেশে থাকাকালীন তাঁর পাঠানো টাকায় বাড়িতে ঘর নির্মাণ করেন মতি। তিনি স্থানীয় একটি সমবায় সমিতিতে কোষাধ্যক্ষ পদে চাকরি করতেন। এক বছর আগে তাঁর বিরুদ্ধে সমিতির টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে। একপর্যায়ে সমিতির কর্তাব্যক্তিরা মতির বসতবাড়ি দখল করে নেন। এরপর বাড়ির কাছে একটি ঘর নির্মাণ করে বসবাস শুরু করেন মতি। ঘরবাড়ি হারানোয় বাবার প্রতি ক্ষুব্ধ ছিলেন শরীফ। এরই জের ধরে ১০ অক্টোবর ক্ষুব্ধ ছেলে বাবা–মায়ের ওই হামলা চালায়। পালিয়ে থাকায় শরীফকে এখনো গ্রেপ্তার করা যায়নি।

আপনার পছন্দের এলাকার সংবাদ

পাঠকের মন্তব্য

 

ইহাতে মন্তব্য প্রদান বন্ধ রয়েছে

আপনি কি পরিচয় গোপন রাখতে চান
আমি প্রথম আলোর নীতিমালা মেনে মন্তব্য করছি।
View Mobile Site
   
সম্পাদক ও প্রকাশক: মতিউর রহমান
সিএ ভবন, ১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা-১২১৫
ফোন: ৮১৮০০৭৮-৮১, ফ্যাক্স: ৯১৩০৪৯৬, ই-মেইল: info@prothom-alo.info
 
topউপরে